পাঁচমিশালী ফেসবুক থেকে সাহিত্য

রোবট সোফিয়া ।। তুফ্ফাহুল জানানত মারিয়া

ঢাকা বিশ্মবিদ্যালয়

আচ্ছা,আপনাদের কি মনে আছে রোবট সোফিয়াকে যেদিন আমাদের দেশে নিয়ে আসা হল সেদিন কেমন তোলপাড় হয়েছিল? হংকং এর হ্যানসন রোবটিক্স সোফিয়ার কারিগর। সোফিয়াকে নিয়ে তোলপাড়
হওয়াটাই স্বাভাবিক কারণ ওগুলো আমাদের দেশের তরুণদের তৈরি না এবং অন্যদেশের বিজ্ঞানীদের তৈরিকৃত জিনিসের প্রতি আমাদের সব সময় অন্যরকম টান, অন্যরকম মোহ কাজ করে অথচ এরকম সম্ভাবনাও আমাদের দেশেও কম ছিল না কিন্তু তার মূল্যায়ন হয়নি। আদৌ কোনদিন হবে কিনা সেটাও সন্দিহান। ইস্ট ওয়েস্ট
ভার্সিটির AS Fardin Ahmed এই FARBOT নামক রোবট আবিষ্কার করেছেন, যে রোবট নির্ভুল হিসেবও করতে পারে। নিজস্ব চেষ্টার এই মূল্যায়ন তিনি পাননি অথচ এরকম একটা কাজ কখনোই স্পন্সর ছাড়া সম্ভব নয়। স্পন্সরের জন্য তিনি বারবার আবেদন করার পরও কোন সাড়া পাননি বলে আফসোস করে লিখেছেন যে,তিনি রোবটিক্স ছেড়ে দেবেন। এরপরও আপনি বিশ্বাস করেন এই দেশে কোন তরুণের মেধার মূল্যায়ন যথাযথ হচ্ছে বা ভবিষ্যতে কোনদিন হবে?
এর আগে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা RIBO নামক রোবট তৈরি করেছিল কিন্তু সেটাও উপযুক্ত স্পন্সর পায়নি,সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা তো আরও দূরের ব্যাপার। এভাবেই আমাদের দেশের সম্ভাবনাময় তরুণরা হারিয়ে যাবে । আমরা কেবল উন্মুখ হয়ে বসে থাকব কোন দেশ কি বানালো সেদিকে নজর দিতে এবং কোটি টাকা খরচ করে তাদের সংবর্ধনা দিতে। এই সম্ভাবনায় তরুণরা যখন ক্ষোভে অন্যদেশে পাড়ি জমায় তখন আবার আমরা ঠিকই মুখে ফেনা তুলে ফেলি “মেধা পাচার ” হয়ে যাচ্ছে। এই মেধার মূল্যায়ন না হলে কোন আশায় বসে থাকবে বলতে পারেন? “আমরা কিছু পারি না “এই কথার চেয়েও বড় সত্যি হচ্ছে আমরা যা পারি তার সামান্যতমও মূল্যায়ন হয় না। আমরা চাই না নিজ চেষ্টায় এতদূর এসে ফারদিনরা হারিয়ে যাক। চাই না, যে মূল্যায়ন এই দেশে পায়নি সেই অভিমানে নিজের মাতৃভূমিকে ছেড়ে যাক।

About the author

szaman

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

August 2018
S M T W T F S
     
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031