SL News নির্বাচন

ভোটগ্রহণ শেষ, গণনা শুরু

উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। চলছে গণনা। চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান বাছাইয়ে সারাদেশে ১১৭ উপজেলায় বেলা আটটা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে বিরতি ছাড়া চলে বিকেল চারটা পর্যন্ত। এই ধাপেও প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রেই ভোটার উপস্থিতি ছিল খুব কম। বিভিন্ন জায়গায় কারচুপির অভিযোগে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা ভোট বর্জন করেছে।

এর আগে ইসির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তৃতীয় ধাপে ১১৭ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছেন ৩৪০ প্রার্থী। ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৫৮৪ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন ৩৯৯ প্রার্থী। তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা নয় হাজার ২৯৮। মোট ভোট কক্ষ বা বুথের সংখ্যা ৫৮ হাজার ৫২৪। উপজেলার তৃতীয় ধাপে ভোট প্রদান করবেন এক কোটি ১৮ লাখ ৮৭ হাজার ৭৫১ জন।

উপজেলায় তৃতীয় দফায় ১১৭ উপজেলায় নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা করা হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী না থাকায় বরিশালের গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, মাদারীপুরের শিবচর, শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ, নরসিংদীর পলাশ এবং চট্টগ্রামের আনোয়ারা এই ছয় উপজেলায় নির্বাচন হয়নি। এর বাইরে আদালতের আদেশে কক্সবাজারের কতুবদিয়া এবং চট্টগ্রামের লোহাগড়া উপজেলায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন নরসিংদীর সদর এবং কক্সবাজারের সদর উপজেলার নির্বাচন তৃতীয় ধাপ থেকে চতুর্থ ধাপে স্থানান্তর করেছে। কমিশন জানায় তৃতীয় ধাপে চেয়ারম্যান পদে ৩৩, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৯ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৩ জন বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ফলে এসব এলাকায় সংশ্লিষ্ট এসব পদে নির্বাচন হয়নি।

কমিশন জানায়, তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে সদর উপজেলাগুলোতে সম্পূর্ণ ইভিএম ব্যবহার করে ভোট নেয়া হবে। এছাড়া আগামী ৩১ মার্চে অনুষ্ঠেয় চতুর্থ ধাপেও ইভিএম ব্যবহার করে ভোট নেয়া হবে সদর উপজেলাগুলোতে। এজন্যও ব্যাপক প্রস্তুতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছে। ইভিএমে ভোটগ্রহণের ক্ষেত্রে কারিগরি টিমে সহায়তা দিতে থাকছে সশস্ত্র বাহিনীর নিরস্ত্র সদস্যরা। ইভিএম পরিচালনা তাদের মূল দায়িত্ব হলেও কোনও অনাহূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় সংশ্লিষ্ট সেনা ক্যাম্পের সঙ্গে যোগাযোগ করে সব পদক্ষেপ নিতে পারবেন। আজ তৃতীয় ধাপের উপজেলাগুলোর মধ্যে রংপুর সদর, গোপালগঞ্জ সদর, মানিকগঞ্জ সদর ও মেহেরপুর সদরে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট নেয়া হবে। ইভিএমের প্রতি কেন্দ্রে পরিচালনায় কারিগরি সহায়তা টিমের অংশ হিসেবে দুজন করে সশস্ত্র বাহিনীর নিরস্ত্র সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন। তাদের সঙ্গে প্রতি টিমে একজন করে ইসি নিয়োজিত ব্যক্তিও কাজ করবেন।

কমিশন থেকে ইভিএম পরিচালনার জন্য কারিগরি টিমের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ভোটকেন্দ্রে অবস্থিত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং টহল কাজে নিয়োজিত র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যদের তৎপর থাকতে বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রয়োজন হলে সেনা সদস্যরা সংশ্লিষ্ট সেনা ক্যাম্পের সঙ্গেও যোগাযোগ করে ব্যবস্থা নিতে পারবে।

About the author

quicknews

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

April 2019
S M T W T F S
« Mar    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930