করোনামুক্ত অস্ট্রেলিয়ায় ফের সংক্রমণ, জারি হচ্ছে লকডাউন

মহামারি করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হওয়ার পর ফের এটির সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে অস্ট্রেলিয়ায়। গত এক সপ্তাহ ধরে দেশটির করোনা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ায় মেলবোর্ন শহরের একাংশকে ফের লকডাউন করা হচ্ছে। ফলে গৃহবন্দী হয়ে পড়তে যাচ্ছে সেখানকার তিন লাখেরও বেশি মানুষ।

করোনা মোকাবিলায় বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় অস্ট্রেলিয়া বেশ সফল বলেই বিবেচিত হচ্ছিল। প্রাদুর্ভাব শুরুর পর মোট ৭ হাজার ৯২০ জন কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত রোগীর বেশিরভাগ সুস্থ। সক্রিয় কোভিড-১৯ রোগীর সংখ্যা এখন ৪০০ এর কম। আর মারা গেছে ১০৪ জন। তবে ফের শনাক্ত রোগী বাড়তে থাকায় দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণের শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

বুধবার মধ্যরাত থেকে অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম শহরের ৩০টির বেশি এলাকায় তৃতীয় ধাপের লকডাউন নিষেধাজ্ঞা জারি হবে। মহামারি করোনা নিয়ন্ত্রণের জন্য লকডাউনের তিনটি সর্বোচ্চ কঠোর ধাপের মধ্যে এটি একটি। এর অর্থ হলো এখন দোকানে কেনাকাট, চিকিৎসা সেবা, কর্মস্থলে যাওয়া এবং সীমিত আকারে শরীরচর্চা ছাড়া এসব মানুষ এখন ঘরবন্দি থাকবে।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সামরিক বাহিনীর মাধ্যমে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের যে পদক্ষেপের আওতায় এই লকডাউন এলাকাগুলোয় এর পরিধি আরো বাড়তে পারে। এছাড়া যেসব এলাকায় এ লকডাউন নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, সেসব এলাকার সীমানায় সেনা টহলদারি করা হবে। সম্প্রতি ভিক্টোরিয়া রাজ্যে রেস্তোরাঁ, জিমনেশিয়াম এবং সিনেমা খুলে দেয়ার পরই ফের সংক্রমণ বাড়ছে।

গতকাল মঙ্গলবার ভিক্টোরিয়ায় রাজ্যজুড়ে ২০ হাজার ৬৬৮ জনের করোনা পরীক্ষার পর ৭৩ জন কোভিড-১৯ পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। সোমবার এই সংখ্যাটা ছিল ৭৫ জন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রুস বুধবার সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, করোনার বিস্তার রোধে নতুন করে আবার সীমান্ত বন্ধ করে নিষেধাজ্ঞা জারি করার সম্ভাবনা রয়েছে।

সূত্র: আল-জাজিরা, রয়টার্স






Related News

  • ভারতে একদিনে ৪০ হাজারেরও বেশি করোনা রোগী শনাক্ত
  • বিশ্বব্যাপী করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৮৭ লাখ ৩৫ হাজার
  • ভারতে পাঁচ দিনেই লক্ষাধিক আক্রান্ত
  • করোনায় বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪৬৩,৯৯৯
  • তিন মাস পর খুলেছে মক্কার ১৫৬০ মসজিদ
  • বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত, মৃত্যু ৪ লাখ ৬২ হাজার
  • বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যু ৪ লাখ ৫৮ হাজার ছাড়িয়েছে
  • %d bloggers like this: