সাহিত্য

হুমায়ূন আহমেদের ৭০তম জন্মদিন উদযাপন

হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন মানেই সাহিত্যপ্রেমীদের আনন্দ। গান, নাচ চলচ্চিত্র আর নাটকের প্রতি ভালোবাসা। ভালোবাসা হিমু আর মিসির জন্য। সেই অকৃত্রিম ভালোবাসা জানিয়েই উদ্যাপিত হল হুমায়ূনময় একটি দিন।

২০১২ সালে প্রয়াত হলেও তিনি এখনও আছেন তার ভক্তদের হৃদয়ে। মঙ্গলবার তার ৭০তম জন্মদিনে তাকে স্মরণ করা হয় নানা আয়োজনে। রাজধানীর শাহবাগের গণগ্রন্থাগারে হুমায়ূন আহমেদের একক বইমেলা, জাতীয় জাদুঘরে ছিল আলোচনা ও চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে ছিল হুমায়ূন মেলা।

শিল্পকলা একাডেমিতে নাট্যদল বহুবচন মঞ্চায়ন করে নাটক ‘দেবী’। ঢাকার অদূরে গাজীপুরের পিরুজালি গ্রামের নূহাশ পল্লীতে লেখকের সমাধিসৌধে ফুলেল ভালোবাসা জানিয়েছেন পরিবারের সদস্য ও ভক্ত-অনুরাগীরা।

জন্মস্থান নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর ও হুমায়ূন আহমেদের জন্মস্থান মোহনগঞ্জেও ছিল বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালা। নানা আয়োজন ছিল ময়মনসিংহের গৌরীপুর ও ফরিদপুরে। যুগান্তর ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

গাজীপুর ও শ্রীপুর : সোমবার রাত ১২টা ১ মিনিটে পুরো নুহাশ পল্লীতে ২ হাজার ৫০০ মোমবাতি প্রজ্বালন করা হয়। মঙ্গলবার সকালে হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন, তাদের দুই ছেলে নিষাদ ও নিনিতসহ স্বজন এবং ভক্তদের নিয়ে নুহাশ পল্লীতে কেক কাটেন। এর আগে হুমায়ূন আহমেদের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন, কবর জিয়ারত ও আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করেন তারা।

পিরুজালি গ্রামে নুহাশ পল্লীর প্রধান গেটের রাস্তা কেটে ও খুঁটি পুঁতে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা হয়েছে। ওই প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে হুমায়ূন ভক্তরা হুমায়ূন আহমেদের সমাধিতে ৭০তম জন্ম বার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানান। শ্রীপুরের রাথুরা বন বিট কর্মকর্তা তার কর্মীদের নিয়ে গত প্রায় ২৫ দিন আগে রাস্তাটি কেটে দেন বলে জানিয়েছেন নুহাশ পল্লীর কর্মকর্তা কর্মচারীরা।

রাস্তাটি নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন হুমায়ূন স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন হুমায়ুন আহমেদ। তার ডাক নাম ছিল কাজল। বাবার রাখা তার প্রথম নাম শামসুর রহমান। পরে তিনিই আর ছেলের নাম বদলে রাখেন হুমায়ূন আহমেদ। ক্যান্সারে ভুগে ২০১২ সালের ১৯ জুলাই তিনি মারা যান। এরপর নুহাশ পল্লীতে তার লাশ দাফন করা হয়।

গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) : গৌরীপুরে যুগান্তর স্বজন সমাবেশের উদ্যোগে শোভাযাত্রা বের করা হয়। হাতেম আলী সড়কে স্বজন মিডিয়া সেন্টারে উপজেলা স্বজন সমাবেশের সমাবেশের সভাপতি মো. এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন পৌর স্বজনের সহসভাপতি রাকিবুল ইসলাম রাকিব।
‘হুমায়ূন আহমেদ ও গৌরীপুর জংশন’ শীর্ষক আলোচনায় অংশ নেন গৌরীপুর মহিলা পরিষদের সম্পাদিকা মমতাজ বেগম, রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হুদা লিটন, উপজেলা স্বজনের সহসভাপতি আবদুল মান্নান, গৌরীপুর যুগান্তর প্রতিনিধি মো. রইছ উদ্দিন প্রমুখ।

ফরিদপুর : ফরিদপুরে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সাহিত্য পত্রিকা উঠোন। লেখকের বন্ধু অধ্যাপক আলতাফ হোসেনের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ও শিক্ষক জগদীশ চন্দ্র ঘোষ। স্বাগত বক্তৃতা করেন উঠোন সম্পাদক মফিজ ইমাম মিলন।

About the author

szaman

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

July 2019
S M T W T F S
« Jun    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031