লাইফস্টাইল

কাচ্চি বিরিয়ানি রান্নার সহজ উপায়

Kacchi-180706082357

আজকে আপনাদের বলব কিভাবে সহজে কাচ্চি বিরিয়ানি রান্না করবেন। কাচ্চি বিরিয়ানি নামটা শুনলে অনেকর কঠিন মনে হয়। কিন্তু আপনি যদি এটা রান্না করেন, তবে আপনার কাছে এটা এক সময় ভাত রান্নার থেকেও সহজ মনে হবে।

উপকরণ

১। খাসির মাংস

২। পোলাও চাল

৩। পেঁয়াজ

৪। তেল, টক দই

৫। রসুন, আদা, শুকনো মরিচ

৬। দুধ, আলু ইত্যাদি

প্রথমে একটি প্যানে তেল গরম করে নিবেন। তারপর আপনি পেয়াজ বেরেস্তা করে নিবেন। ১ কাপ পরিমাণ পেয়াজ নিয়ে ডুব তেলে বেরেস্তা করে নিবেন। ডুব তেলে যদি আপনি বেরেস্তা করেন তবে এটি খুব মচমচে হবে। বেরেস্তা আপনাকে অনবরত নাড়তে হবে নাইলে কোথাও বেরেস্তা হবে আবার কোথাও হবে না। যখন বেরেস্তা একটু সাদা থাকবে বাকিটা ব্রাউন হয়ে যাবে ঠিক সেই সময় আপনি বেরেস্তা তুলে নিবেন। বেরেস্তা তুলে একটি টিসুর উপরে বিছিয়ে দিবেন। এতে টিসুটা বাড়তি তেল টুকু ছোপ করে নিবে।

এবার আপনি একটি বাটিতে এক কেজি পরিমান খাসির মাংস নিবেন। তাতে আপনি আধা কাপ পরিমাণ তেল দিয়ে দিবেন। আর ওই পেয়াজ বেরেস্তা চাপ দিয়ে গুড়ো করে এর মধ্যে দিয়ে দিবেন। তারপর আপনি ১ কাপ টক দই দিবেন। সাথে ২ টেবিল চামচ রসুন বাটা দিয়ে দিবেন।

আদা বাটা দেড় টেবিল চামচ, শুকনো মরিচের গুড়া ১ চা চামচ দিয়ে দিবেন। সাথে লবন দিবেন স্বাদ অনুযাই, জয়ফল বাটা এক চা চামচ, গরম মসলার গুড়া ১ চা চামচ, জয়ত্রী খুব সামান্য পরিমান দিয়ে দিবেন। এবার এটাকে খুব ভালো করে মাখাতে হবে। মাখানোর উপরই কিন্তু বিরিয়ানির আসল টেস্টটা নির্ভর করে। বিরিয়ানি রান্নার সময় যেহেতু মাংস বেশি নাড়া চাড়া করতে পারবেন না, তাই মাংসটা এমন ভাবে মাখাতে হবে যেন মাংসের প্রতিটা কোনায় মসলা লাগে। মসলা মাংসে মাখিয়ে ২ ঘন্টা রেখে দিবেন। আপনি যত বেশি সময় মাংস মাখিয়ে রাখবেন, মাংসের মেরিনেশনটা তত ভালো হবে, মসলাটাও মাংসের মধ্যে ঢুকে যাবে।

এবার আপনি চালটা খুব ভালো করে কষলিয়ে ধুয়ে নিবেন। আপনি চালটা ঠিক ততক্ষণ ধুবেন যতক্ষন না পানি টলটলে না হয়। চাল ধোয়া হয়ে গেলে চালটা একটা স্টেনারে রেখে দিবেন, এতে চালের বাড়তি পানি ঝরে যাবে। পানি ঝরে গেলে বিরিয়ানি ঝরঝরে হবে। এরপর চালটা আপনি ১০ মিনিট রেখে দিবেন।

এখন আপনি আটা তৈরি করে নিবেন। একটি পাত্রে প্রয়োজনীয় আটা নিয়ে নিবেন। নরমাল পানি দিয়ে আপনি আটা মাখিয়ে নিবেন। যেহেতু এ আটা আপনি খাবেন না তাই এখানে আপনার তেল, লবন কিছুই দিতে হবে না। এমনভাবে মাখাবেন যেন খুব শক্তও না হয় , আবার নরমও না হয়। এভাবে আপনি অল্প অল্প করে পানি দিয়ে আটা মাখিয়ে নিবেন।

তারপর আপনি আধা কেজি আলু ছিলে নিয়ে একটু জরদার রঙ মাখিয়ে নিবেন। আপনার আলু যদি একটু বড় সাইজের হয় তবে আপনি কেটে নিবেন তাড়াতাড়ি সিদ্ধ করার জন্য। জরদা রঙের জন্য আলু ভাজলে খুব সুন্দর হবে। এবার আপনি আলুটা ৫ মিনিট রেখে দিবেন।

ফুটন্ত গরম পানিতে আপনি চালটা দিয়ে দিবেন। এই অবস্থায় ১ চামচ শাহি জিরা দিয়ে দিবেন। এ সময় দাঁড়িয়ে থেকে চালটা সিদ্ধ করতে হবে। চাল এমন ভাবে সিদ্ধ কবেন যেন ভিতরে আশ আশ ভাব থাকে। যখনই ব্লোক আসবে তখনই আপনি চালটা স্টেনারে ঢেলে নিবেন।

এবার একটি পাত্র গরম করে নিয়ে ঘি দিয়ে দিবেন। তারপর মাখানো আলুগুলো দিয়ে দিবেন। আলু গুলো লাল লাল করে ভেজে নিবেন। আলু গুলো ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ভাজবেন , যেন কোন পাশ কম বেশি না হয়।

মেরিনেট করা মাংস গুলো একটি হাড়িতে বিছিয়ে নিবেন। মাংসগুলো একদম সমান করে বিছিয়ে দিবেন। কোথাও উচু নিচু যেন না হয়। এর উপর আপনি ভাজা আলু গুলো দিয়ে দিবেন। মাংসের উপর আলু দিলে মাংসের যে একটা সুন্দর গন্ধ তাও আলুতে ঢুকে যাবে। এবার আপনি এর উপর চালটা বিছিয়ে দিবেন, জিরা গুলো যেন স্টেনারে লেগে না থাকে। চালটা ও সমান করে নিবেন। তারপর ২ টেবিল চামচ কেউডার জল নিয়ে নিবেন। গোলাপ জল দিয়ে দিবেন ২ টেবিল চামচ।

আলু বোখরা দিবেন, সামান্য একটু জরদার রঙ ও দিবেন। এটা দিলে বিরিয়ানির কালার খুব সুন্দর আসে। লবন দিবেন স্বাদ অনুযাই। তারপর ২ টেবিল চামচ ঘি চালের উপর ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে দিয়ে দিবেন। সবশেষে ১ কাপ পরিমান সোল ক্রিম দুধ দিয়ে দিবেন। এখানে আপনি কোন পানি দিবেন না। এক কাপ দুধ ও মেরিনেসনের পানি দিয়ে সিদ্ধ হবে। এবার মাখনো আটা হাড়িটার চার দিকে লাগিয়ে দিতে হবে। এবার ঢাকা দিয়ে দিবেন। ঢাকা দিয়ে হাড়ির উপর আলতো করে চাপ দিয়ে লাগিয়ে নিবেন। একটা তাওয়া চুলার উপর দিয়ে ভালোভাবে গরম করে নিবেন।

হাড়িটা এবার তাওয়ার উপর বসিয়ে দিবেন। তার পর একটা ভারি গ্লাস ঢাকনাটার উপর বসিয়ে দিবেন। চুলার আচঁ ফুল দিয়ে ১০ মিনিট রান্না করবেন। ১০ মিনিট পর চুলার আচঁ মিডিয়ামে দিয়ে দিবেন। যখন আপনি খুব সুন্দর একটা বিরিয়ানির গন্ধ পাবেন তখন বুঝবেন বিরিয়ানিটা হয়ে এসেছে। তারপর গ্লাসটা সরিয়ে চুলা নিভিয়ে দিবেন। ঢাকনা খুলে পুরো বিরিয়ানিটা মাংসের সাথে ভালো ভাবে মিশিয়ে নিবেন। এভাবেই খুব সহজে আপনি কাচ্চি বিরিয়ানি রান্না করতে পারেন।

About the author

quicknews

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

November 2019
F S S M T W T
« Oct    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930