অর্থনীতি

৭% জিডিপি অর্জন সম্ভব : বিশ্বব্যাংক

২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৭ শতাংশ জিডিপি অর্জন সম্ভব বলে মনে করছে বিশ্বব্যাংক। তবে এজন্য বাংলাদেশকে কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। সেগুলো মোকাবেলা করতে পারলে জিডিপি প্রবৃদ্ধির ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে বাংলাদেশের উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিবেদন প্রকাশ বিষয়ক অনুষ্ঠানে এসব তথ্য উঠে আসে।

অনুষ্ঠানে ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের ঢাকা কার্যালয়ের প্রধান অর্থনীতিবিদ জাহিদ হোসেন বলেন, গত অর্থবছরে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে আমূল পরিবর্তন এসেছে। তবে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সামগ্রিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে হবে। সেজন্য আমাদের কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে। স্বল্পমেয়াদি, মধ্যমেয়াদি এবং দীর্ঘমেয়াদী চ্যালেঞ্জ গুলো সঠিক ভাবে মোকাবেলা করতে পারলে জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরো বাড়বে বলে মনে করেন তিনি।

স্বল্পমেয়াদী চ্যানেল গুলোর মধ্যে আছে মুদ্রাস্ফীতি, ডলারের বিনিময় মূল্য, সুদ হার নিয়ন্ত্রণ এবং জনগণের জীবনযাপন মান উন্নয়ন। এই সমস্যাগুলো সমাধানের মাধ্যমে স্বল্পমেয়াদি চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব।

তিনি আরো বলেন, আমাদের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে রপ্তানি বৃদ্ধির কোনো বিকল্প নেই। তবে শুধুমাত্র গার্মেন্টস পণ্য রপ্তানিতে মনোযোগ দিলে চলবে না পণ্য রপ্তানির খাতগুলো সম্প্রসারণ করতে হবে। পোশাক খাত থেকে বেরিয়ে এসে অন্যান্য পণ্য রপ্তানিতে গুরুত্ব দিতে হবে।

প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা দীর্ঘমেয়াদি করতে হলে মানব দক্ষতা উন্নয়ন, পরিকল্পিত নগরায়ন এবং পরিবেশগত ভারসাম্য রক্ষা করার কোন বিকল্প নেই।

পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টারের(পিপিআরসি) চেয়ারম্যান হোসেন জিল্লুর রহমান, বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে বাংলাদেশ ঝুঁকিপূর্ণ বিনিয়োগের দিকে ঝুঁকছে। গত অর্থছরে যেমন খেলাপি বেড়েছে, পাশাপাশি বাণিজ্য ঘাটতিও বেড়েছে। অবকাঠামোগত উন্নয়নের পাশাপাশি মানবসম্পদ উন্নয়নের দিকে নজর দেওয়াটা অত্যন্ত জরুরি বলে মনে করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণে প্রাথমিক পর্যায়ে যে বাজেট নির্ধারণ করা হয়েছিল এখন তা কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। কিন্তু কি কারণে এই ব্যয় বেড়েছে তা জনসম্মুখে প্রকাশ করা উচিৎ।

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে ঢাকায় এ সংস্থার আবাসিক প্রতিনিধি চিমিয়াও ফান ছাড়াও বেসরকারি গবেষণা সংস্থা পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর এবং পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টারের(পিপিআরসি) চেয়ারম্যান হোসেন জিল্লুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

About the author

quicknews

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

November 2018
S M T W T F S
« Oct    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930