ধর্মতত্ত্ব বুলেটিন

রসুলের স: তরীকা অনুযায়ী জন্মদিন ও মিলাদুন্নবী পালন পদ্ধতি।

রসুলের স: তরীকা ও সুন্নত অনুযায়ী জন্মদিন ও মিলাদুন্নবী পালন করার পদ্ধতি।
দরসে হাদিস- (৫০)
عَنْ أَبِي قَتَادَةَ الْأَنْصَارِيِّ رَضِيَ اللَّهُ عَنْهُ أَنَّ رَسُولَ اللَّهِ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ سُئِلَ عَنْ صَوْمِ الِاثْنَيْنِ فَقَالَ فِيهِ وُلِدْتُ وَفِيهِ أُنْزِلَ عَلَي. رواه مسلم
(৫০) আবু ক্বাতাদাহ আনসারী (রাঃ) হতে বর্ণিত; তিনি বলেন; রাসুলুল্লাহ সঃ কে সোমবারে রোজা রাখার কারণ জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন; এই দিনেই আমি জম্মগ্রহণ করেছি এবং এই দিনেই আমার প্রতি ক্বুরআন নাজিল হয়েছে।মুসলিম
ফায়দাহ: মুসলিম শরীফের এ সহীহ হাদীস দ্বারা স্পস্টভাবে জানা গেলো আল্লাহর রসুল স. তাঁর জম্ম দিবস পালন করতেন। তিনি সোমবার জম্মগ্রহণ করেছেন তাই সোমবার যে মহান প্রভু তাঁকে দুনিয়াতে প্রেরণ করেছেন তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রোজা পালনের মাধ্যমে জম্ম দিবস পালন করতেন। এখানে মুসলমানগণ দু’টি কাজ করতে পারেন-আল্লাহর রসুল স. সোমবার রোজা রেখেছেন তাই তাঁর অনুকরণ করে তারাও সোমবার রোজা পালন করতে পারেন। দ্বিতীয়ত আল্লাহর রসুল স. রোজা রাখার মাধ্যমে তাঁর জম্মদিন পালন করেছেন তাই সকল মুসলমান স্বীয় জম্ম দিবসে রসুলুল্লাহ স. এর প্রদর্শিত পথ অনুকরণ করে রোজা রাখার মাধ্যমে মহান প্রভুর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে জম্ম দিবস পালন করতে পারে। এখানে উল্লেখ্য যে জম্মদিন প্রতি সপ্তাহে একবার আসে, প্রতি বছরে নয়। বছরে যা আসে তা জম্মদিন নয় বরং জম্মবার্ষিকী। বর্তমানে মুসলমানগণ আল্লাহর রসুলের সুন্নত ও আদর্শকে ছেড়ে দিয়ে ইহুদী খৃস্টানদের রীতি ও আদর্শ অনুকরণ করে চলছে। তাঁরা জম্ম দিবস পালন করা ছেড়ে দিয়ে জম্মবার্ষিকী পালন করছে। তাও তাদের গর্হিত পন্থা- , বেহায়াপনা, নারী-পুরুষের অবৈধ মেলামেশা ও অশ্লীল ভাব-ভঙ্গি বিনিময়ের মাধ্যমে, কেক কেটে,বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে মোমবাতি জ্বালিয়ে ও নিভিয়ে তালি বাজিয়ে ও হাসি-ঠাট্টার মাধ্যমে। অপর দিকে অন্য এক দল রয়েছেন যারা আল্লাহর রসুল স. এর নিশ্চিত ওফাত তারিখে (রবিউল আউয়াল মাসের ১২ তারিখ) যে দিবসে তাঁর জম্ম তারিখ নিশ্চিত নয় সে দিবসে নিজেদের বানানো বিভিন্ন পন্থায় আনন্দ ও খুশি প্রকাশের মাধ্যমে উদযাপন করে বিদআ’ত ও খোরাফাতে নিমজ্জিত হয়ে পথ হারা হচ্ছেন। রসুলের তরীকা ও তাঁর আদর্শের বিরোধিতা করে তাঁর প্রতি ভালবাসা প্রকাশ করছেন। আল্লাহ আমাদেরকে সহীহ দ্বীন অনুসরণ করার তৌফিক দিন। আমীন

লেখক: প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, সভাপতি,আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া।

About the author

szaman

Add Comment

Click here to post a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আর্কাইভ ক্যালেন্ডার

December 2018
S M T W T F S
« Nov    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
3031